ওমানে নতুন যে আইনে বিপাকে প্রবাসী বাংলাদেশিরা !

122

ওমানে প্রবাসী কর্মী নিয়োগে বিধিনিষেধ – ওমানীকরণের অংশ হিসেবেই দেশটিতে সেলস (বিক্রয়) প্রতিনিধি/সেলস প্রমোটার ও পারেচজ (ক্রয়) প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করা প্রবাসীদের বিদ্যমান ভিসার মেয়াদ বাড়ানো বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে বিপাকে পড়েছেন দেশটিতে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

সম্প্রতি দেশটির জনশক্তি মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই জানানো হয়েছে। ওমানে বসবাসরত বাংলাদেশিসহ বিশ্বের সব দেশের নাগরিক এই নিষেধাজ্ঞায় পড়েন।

ওমানি নাগরিকদের আরও বেশি চাকরির সুযোগ দেওয়ার লক্ষ্যেই মূলত এসব পেশায় প্রবাসী কর্মী নিয়োগে বিধিনিষেধ জারি করে দেশটির জনশক্তি মন্ত্রণালয়।

ওমানের জনশক্তিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ বিন নাসের আল বাকরী জানিয়েছে, শুধু ওমানিরাই বেসরকারি খাতের প্রতিষ্ঠানগুলোতে সেলস (বিক্রয়) প্রতিনিধি/সেলস প্রমোটার এবং পারেচজ (ক্রয়) প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

বিক্রয় প্রতিনিধি/বিক্রয় প্রচারক ও ক্রয়ের প্রতিনিধি হিসেবে যেসব প্রবাসী বাংলাদেশিসহ অন্যান্য দেশের প্রবাসীরা ওমানে কাজ করছেন, তাদের বিদ্যমান ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আর পুনর্নবীকরণ করা হবে না এবং তাদের চলমান ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে তাদেরকে স্বদেশে ফিরে যেতে হবে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে জনশক্তিমন্ত্রী জানান, মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জানানো হয়েছে বর্তমানে এসব পেশায় কর্মরত বিদেশি কর্মীদের জন্য ওয়ার্ক-পারমিট লাইসেন্সগুলি নবায়ন আর করা হবে না, যাতে তাদের জায়গায় সহজেই ওমানিদের প্রতিস্থাপন করা যায়।

এক্ষেত্রে কোম্পানির মালিক আর প্রবাসী কর্মীদের মধ্যে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে ভিসার মেয়াদ আর বাড়ানো হবে না।

এই সিদ্ধান্তের ফলে অনেক বাংলাদেশিকে দেশে ফিরে আসতে হচ্ছে। এই আইন শুধুমাত্র যাদের ভিসা বিক্রয় প্রতিনিধি/বিক্রয় প্রচারক ও ক্রয়ের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন তাদের জন্য।

ওমানের জনশক্তি মন্ত্রণালয়ের এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, ‘ওয়ার্ক পারমিটের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে বিক্রয় প্রতিনিধি/বিক্রয় প্রচারক ও ক্রয়ের প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত প্রবাসীর ওমান থেকে চলে যেতে হবে এবং তাদের ভিসা পুনর্নবীকরণ করা যাবে না এবং এইসব কাজের জন্য আর নতুন করে কোনো ভিসাও দেওয়া হবে না’।

যে কা’রণে পদত্যাগ করলেন ব্যারিস্টার সুমন

ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর বরাবর পদত্যাগপত্র পাঠান ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। আন্তর্জাতিক অপ’রাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর বরাবর পদত্যাগপত্র পাঠান ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

আবেদনে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ‘২০১২ সালের ১৩ নভেম্বর আন্তর্জাতিক অপ’রাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর হিসেবে যোগদান করি। এরপর থেকে বিভিন্ন মামলা অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে পরিচালনা করেছি।

কিন্তু ইদানিং বিভিন্ন সামাজিক সেবমূলক কাজে নিবিড়ভাবে জ’ড়িত হয়ে যাওয়ার কারণে আন্তর্জাতিক অপ’রাধ ট্রাইব্যুনালের মতো রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে সম্পূর্ণ নিষ্ঠার সঙ্গে সময় দিতে পারছি না। এ অবস্থায় সরকারি কোষাগার থেকে বেতন নেওয়া আমি অ’নৈতিক বলে মনে করি। এ কারণে বর্তমান পদ থেকে আমি অব্যাহতি প্রার্থনা করছি।’