কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভে সিনহার বোনের অভিনব প্রতিবাদ

143

বর্তমানে সবচেয়ে বাংলাদেশে আলোচিত-সমালোচিত ঘটনা সিনহা মো: রাশেদ খান হ”ত্যা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক দেহরক্ষী চৌকস এই অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তাকে খুব কাছ থেকে গু’লি করে হ”ত্যা করা হয়েছে।

গত ৩১ জুলাই টেকনাফের বাহারছড়া পুলিশ চেকপোস্টে পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত তার বুকে চারটি গু’লি করে হ”ত্যা করেছিলেন। পরে মৃ”ত অবস্থায় বরখাস্ত ওসি প্রদীপও আরো দুটি গু’লি করেন।

এই চরম আ’ক্র’মণ আচ করতে পেরেছিলেন চৌকস সিনহা। তাই পুলিশ তার গাড়ি দাঁড় করানোর সাথে সাথে তিনি কাম ডাউন বলে দু’হাত তুলে নিজে নত স্বীকার করেছিলেন। কিন্তু তারপরও নি’ষ্ঠু’র লিয়াকতের মনে দয়া আসেনি। মুহূর্তেই পরপর চারটি গু’লি করে সিনহাকে নি’র্ম’মভাবে হ”ত্যা করেন।

এই ঘটনা দেড় মাস পেরিয়ে গেছে। একমাত্র ভাইয়ের হ”ত্যাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন বড়বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস। এ ঘটনায় ওসি প্রদীপ, লিয়াকতসহ ১৪ জন কা’রাগা’রে আছেন। ভাইয়ের এমন মৃ”ত্যু মেনে নিতে পারছেন না বোন শারমিন।

তিনি বিচারের জন্য দৌড়ঝাঁপ চালিয়ে যাচ্ছেন। চালিয়ে যাচ্ছেন প্রতিবাদ। এবার নিজেই ঘটনাস্থলে বুকে কাম ডাউন প্লাকার্ড ঝুলিয়ে ভাই হ”ত্যার অভিনব প্রতিবাদ জানিয়েছেন। চেয়েছেন দো’ষী’দের কঠিন বিচার। শারমিন শাররিয়ার ফেরদৌসের এই অভিনব প্রতিবাদের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, মেজর সিনহা গাড়ি থেকে নামার আদেশ পেয়ে দুই হাত উপরে তুলে পি’স্ত’ল তাক করা লিয়াকতের উদ্দেশে কামডাউন উচ্চারণ করে শান্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে নামার সময়ই পর পর চারটা গু’লি করে হ”ত্যা করা হয় সিনহাকে।

সাক্ষীদের নিকট থেকে জানার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে বোনের এ অভিনব প্রতিবাদ দেশবাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে ব্যাপকভাবে।

বরিশালে শিক্ষক‌কে কান ধ‌রে উঠবসের ঘটনায় মামলা

ব‌রিশালে শিক্ষককে কান ধ‌রে উঠবসের ঘটনায় ডি‌জিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। নামধারী দুইজন এবং অজ্ঞাত ৭/৮ জ‌নের বিরুদ্ধে শিক্ষক মিজানুর রহমান সজল বাদী হ‌য়ে এই মামলা‌টি দা‌য়ের করেন ব‌লে মঙ্গলবার রাতে জা‌নিয়েছেন ব‌রিশাল কোতয়ালী মডেল থানা পু‌লিশের ওসি নুরুল ইসলাম।

জানা গে‌ছে, নগরীর জমজম ইন্স‌টি‌টিউটের সা‌বেক শিক্ষক মিজানুর রহমান সজ‌লের সা‌থে তুচ্ছ বিষয় নি‌য়ে দ্ব’ন্দ্বকে কেন্দ্র ক‌রে ২৬ আগস্ট ওই ইন্স‌টি‌টিউটের ছাত্র ইম‌তিয়াজ ইমন ও তার সহযো‌গীরা নগরীর অক্সফোর্ড মিশন রোডে নি‌য়ে তাকে মা’রধ’র করে।

পাশাপা‌শি ওই শিক্ষককে কান ধ‌রে উঠবস ক‌রি‌য়ে সেই ভি‌ডিও সামা‌জিক যোগা‌যোগ মাধ্যমে ছ‌ড়ি‌য়ে দেওয়া হয়। তখন জমজম ইন্স‌টি‌টিউ‌টের ছাত্রী এবং ছাত্র ইম‌নের স্ত্রী মনিরাও উপ‌স্থিত ছি‌লেন।

তখন ইমন ও তার সহ‌যো‌গিরা ম‌নিরাকে যেন ডিস্টার্ব করা না হয় সেই জন্য শিক্ষক সজলকে শপথ বাক্যও পাঠ করান, যা ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা এবং শোনা যায়।

এই ঘটনায় শিক্ষক মিজানুর রহমান সজল বাদী হ‌য়ে ছাত্র ইমন ও স্ত্রী ম‌নিরা‌কে নামধারী এবং আরো অজ্ঞাত ৭/৮ জনকে বাদী করে মামলা দায়ের করেন।