ক’রো’নার সংক্র’মণ এড়াতে বর্জন করতে হবে যে সব খাবার

363

প্রাণ’ঘা’তী ক’রো’না প্রতিরোধে বেশ কিছু খাবার বর্জনের পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানী ও পুষ্টিবিদরা। তারা সতর্ক করে বলছেন, ফাস্টফুড ও প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়া যাবে না, চিনি বাদ দিতে হবে এবং ধূমপানও ছেড়ে দিতে হবে। তাদের মতে, এ সব খাবারে শারীরিক জটিলতা বাড়বে, যা কো’ভিড-১৯ এ মৃ’ত্যুর কারণ হতে পারে।

ইউরোপীয়ান সায়েন্টিস্ট ম্যাগাজিনে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাজ্যে হাসপাতালগুলোর আইসিইউতে প্রথম যে কয়েক হাজার রোগী ভর্তি হয় তাদের মধ্যে তিনভাগেরই ছিলো অতিরিক্ত ওজন বা স্থূলতা। এছাড়া যাদের টাইপ-টু ডায়বেটিস ও বিপাকীয় সিন্ড্রম রয়েছে তারা ক’রো’না’য় আ’ক্রা’ন্ত হলে মৃ”ত্যুর ঝুঁ’কি ১০ গুণ বেড়ে যায়। এ গবেষণাটি পরিচালনা করেন যুক্তরাজ্যের এনএইচএস এর কার্ডিওলোজিস্ট আসিম মালহোত্রা।

তিনি বলেন, ‘পরিসংখ্যান থেকে এটি স্পষ্ট যে কো’ভিড-১৯ এ মৃ’ত্যুর একটি শীর্ষ কারণ বিপাকীয় সমস্যা। আমরা যে কথাগুলো আগে থেকে বলে আসছি তা হচ্ছে- টাইপ-২ ডায়বেটিস, হৃদরোগ এবং উচ্চ রক্তচাপের রোগীরা সুস্থ বয়স্কদের চেয়ে অনেক বেশি ঝুঁ’কিতে রয়েছে। কিন্তু যে বিষয়টি বলা হচ্ছে না, তা হচ্ছে- কম পুষ্টিসম্পন্ন খাবার এবং স্থুলতাও কো’ভিড-১৯ এ মৃ’ত্যুর অন্যতম কারণ।’

তিনি বলেন, ‘আপনি চিনি এবং প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়া বন্ধ করে দিন, দেখবেন কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এর সুফল পাচ্ছেন। আপনার দেহে ক’রো’নাভাই’রাসের ঝুঁ’কি কমে আসবে।’ এইউটির সিনিয়র লেকচারার এবং পুষ্টিবিদ ক্যারিন জিন বলেন, ‌’মালহোত্রা যা বলেছেন একেবারে সঠিক বলেছেন। এগুলো সবার মেনে চলা উচিত।’

তিনি বলেন, ‘আমরা যদি ক’রো’নাভা’ইরাস থেকে বেঁচে থাকতে চাই তাহলে আমাদের শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে হবে এবং বিপাকীয় সুস্থতা নিশ্চিত করতে হবে। এ জন্য অবশ্যই অপক্রিয়াজাত খাবার আমাদের খেতে হবে। এতে দেহে সুগারের মাত্রা স্বাভাবিক থাকবে। এর পাশাপাশি পর্যাপ্ত ঘুমাতে হবে, নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে, মানসিক চিন্তা কমাতে হবে এবং পরিবারের সঙ্গে সুন্দর সময় কাটাতে হবে।’

তিনি বলেন, উদ্বিগ্ন থাকার সময় অনেকেই খাবারের ঝামেলা এড়াতে প্যাকেটজাত খাবার খায়। অথচ এ মূহুর্তে এটি একটি নিকৃষ্ট পছন্দ। প্রক্রিয়াজাত খাবারে খুব একটা পুষ্টি নেই অথচ ওজন বাড়ায় ও স্থূলতা তৈরী করে। যা ক’রো’নায় মৃ’ত্যুর কারণ হয়।’ এর পাশাপাশি ধূমপান বর্জনেরও পরামর্শ দিচ্ছেন ডাক্তাররা। তাদের মতে, ধূমপান ফুসফুসকে আগে থেকেই দূর্বল করে দেয়, ফলে কো’ভিড-১৯ এ যে কেউ সহজে মা’রা যায়।

সূত্র: নিউজহাব….

এই ক্রান্তিকালে মানসিকভাবে সুস্থ থাকবেন যেভাবে…

ক’রো’না ভাই’রাসের প্রাদুর্ভাবের জেরে বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষ লকডাউনে রয়েছে। বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরেই সকল কে ঘরবন্দি অবস্থায় থাকতে হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে যারা পরিবারের সঙ্গে রয়েছেন, তাঁদের খুব একটা সমস্যা না হলেও যারা একা পরিবারের থেকে অনেক দূরে রয়েছেন, তাঁদের এই মুহূর্তে অবস্থা খুবই উদ্বেগজনক। শারীরিক দিক থেকে নয়, বরং মানসিক দিক থেকে।

অনেকেই এমন রয়েছেন যারা কর্মসূত্রে বা পড়াশুনোর কারণে বাইরে রয়েছেন। এই লকডাউনের জেরে বর্তমানে তাঁরা বাড়িও ফিরতে পারছেন না। এই অবস্থায় মানসিক দিক থেকে শক্ত হওয়া অত্যন্ত জরুরি। এর জন্য প্রতিদিনের লাইফস্টাইল আপনাকে পাল্টাতেই হবে।

১. সকালে ঘুম থেকে উঠে প্রথমে ফ্রেশ হয়ে নিন, তারপর মেঝে বা বিছানার ওপর বসুন। চোখ বন্ধ করে ১৫ থেকে ২০ মিনিট ধ্যান করুন। এতে আপনি ধীরে ধীরে মানসিকভাবে শক্ত হবে।

২. ঘরবন্দি অবস্থা সারাক্ষণ না ঘুমিয়ে গল্পের বই পড়তেই পারেন। আর যদি গল্পের বই হাতের কাছে না থাকে, তাহলে মোবাইলে ই-বুক বা সিনেমা কিমবা ওয়েব সিরিজ দেখে সময় কাটাতে পারেন।

৩. মানসিকভাবে নিজেকে সুস্থ রাখার পাশাপাশি নিজেকে শারীরিকভাবে ফিট রাখা অত্যন্ত জরুরি। তাই প্রতিদিন সকালে উঠে বেশ কয়েকঘন্টা শরীরচর্চা করুন। এতে শরীরে অবাঞ্ছিত মেদ জমবে না।