কাতারের আমীরের সাথে এরদোগানের রুদ্ধদ্বার বৈঠক!

97

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী মুসলিম নেতা রজব তাইয়েব এরদোগান কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানির সাথে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন। বুধবার (৭ অক্টোবর) কাতারের রাজধানী দোহায় দেশটির আমির আল থানির সী প্যালেসে প্রায় এক ঘন্টাব্যাপী এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় অন্যান্য আলোচনার পাশাপাশি শেখ সাবাহ আল-আহমদ আল-জাবের আল-সাবাহের ইন্তেকালে বর্তমান আমির আল-সাবাহের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। প্রসঙ্গত, উপসাগরীয় দেশে একদিনের ওয়ার্কিং ভিজিটের অংশ হিসেবে বুধবার দুপুর ২ টা ২০ মিনিটে (স্থানীয় সময়) দোহা বিমানবন্দরে পৌঁছেন এরদোগান।

সেসময় কাতারের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী খালিদ বিন মুহাম্মাদ আল আত্তিয়াহ ও তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মেহমেট মোস্তফা গোকসুর নেতৃত্বে একটি কাতারি প্রতিনিধি দল তাকে স্বাগত জানায়। এ সফরে সফরসঙ্গী হিসেবে এরদোগানের সাথে ছিলেন তুরস্কের ট্রেজারি ও অর্থমন্ত্রী বেরাত আলবায়রাক,

জাতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হুলুসী আকার, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী মেহমেট কাসাপোগলু, জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার (এমআইটি) প্রধান হাকান ফিদান, যোগাযোগ বিভাগের পরিচালক ফাহেরেটিন আলতুন এবং রাষ্ট্রপতির মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিনসহ একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তা।

সাহিত্যে নোবেল পেলেন কবি লুইস গ্লুক

২০২০ সালের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেলেন মার্কিন কবি লুইস গ্লুক। সুইডিশ অ্যাকাডেমি জানিয়েছে তার অসামান্য কাব্যভাষ্য ও দার্শনিক সৌন্দর্যবোধ ব্যক্তি সত্তাকে সার্বজনীন করে তোলে।

বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সাহিত্যে নোবেল প্রাপকের নাম ঘোষণা করার সময় অ্যাকাডেমির নোবেল কমিটির চেয়ারম্যান অ্যান্ডার্স অলসন জানিয়েছেন, ‘গ্লুকের ভাষ্য মধুর এবং আপসহীন। তার কবিতা পড়লেই বোঝা যায় যে, তিনি নিজেকে প্রাঞ্জল করতে সচেষ্ট। একই সঙ্গে তার লেখায় পাওয়া যায় হাস্যরস ও তীক্ষ্ণ কৌতুকের সংমিশ্রণ।’

প্রসঙ্গত, নোবেল পুরস্কারের ইতিহাসে ১৬তম মহিলা বিজেতা হলেন এই মার্কিন কবি। ১৯৪৩ সালে জন্মগ্রহণ করা গ্লুক ১২টি কবিতা সমগ্র এবং একটি প্রবন্ধের বই লিখেছেন। ১৯৯৩ সালে ‘দ্য ওয়াইল্ড আইরিস’ কবিতাগ্রন্থের জন্য পুলিৎজার পুরস্কার পেয়েছিলেন। ২০১৬ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাকে জাতীয় মানবাধিকার পুরস্কারে ভূষিত করে।