ঘোষণা করা হয়েছে ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটির তারিখ

241

সরকার আগামী ২০ অক্টোবর (বুধবার) পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবীর (সা.) ছুটি নির্ধারণ করেছে। রোববার (১৭ অক্টোবর) ছুটি পুনর্নির্ধারণ করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়,

অ্যালোকেশন অব বিজনেস অ্যামং দ্য ডিফারেন্স মিনিস্ট্রিস অ্যান্ড ডিভিশন্স-এর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় অংশে ৩৭ নম্বর ক্রমিকের বিধানে দেওয়া ক্ষমতাবলে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে

সরকারি ছুটি আগামী ১৯ অক্টোবরের পরিবর্তে ২০ অক্টোবর পুনর্নির্ধারণ করা হলো। যেসব অফিসের সময়সূচি ও ছুটি তাদের নিজস্ব আইন-কানুন দিয়ে নিয়ন্ত্রিত হয় বা যেসব অফিস, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের চাকরি সরকারের অত্যাবশ্যক

চাকরি হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট অফিস, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নিজস্ব আইন-কানুন অনুযায়ী জনস্বার্থ বিবেচনা করে এই ছুটি পুনর্নির্ধারণ করবে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

সন্তানদের সাঁতার শেখাতে গিয়ে হার্ট অ্যাটাকে মা’রা গেলেন পাইলট বাবা

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সন্তানদেরকে পুকুরে সাঁতার শিখাতে গিয়ে হৃদযন্ত্র ক্রীড়া বন্ধ হয়ে মো. কাজি মফিজুর রহমান (৪৪) নামের বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত এক ইউং কমান্ডারের (পাইলট) মৃ”ত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুরে উপজেলার

মধ্য কেরোয়া গ্রামের কাজি বাড়িতে এঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃ’ত কাজি সিদ্দিকুর রহমানের তৃতীয় সন্তান। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। মৃ’ত পাইলট মফিজুর রহমানকে দুপুর আড়াইটার দিকে তার ঢাকাস্থ বসুন্ধারা গ্রীন সিটির বাসায় নেয়া হয়েছে।

বিকালে বিমানবাহিনীর সদর দপ্তরে জানাজা শেষে তাকে ঢাকাতেই দা’ফ’ন করা হবে বলে তাদের পারিবারিক সূত্র জানাযায়। মফিজুর রহমান লক্ষ্মীপুর-২ রায়পুরের সাবেক সাংসদ কুয়েতের কা’রাগা’রে বন্দি কাজি শহীদ ইসলাম ও সাবেক তথ্য সচিব

কাজি নাজমুল আলম সিদ্দিকির চাচাতো ভাতিজা বলে জানাযায়। মৃ’তে’র স্বজন কাজি ফরিদ হোসেন ও কাজি এরফান জানান, মফিজুর রহমান ১৯ বছর চাকুরি জীবন শেষে সেচ্ছায় অবসর নেন। গত দুই বছর বেসরকারি ১টি বিমানের পাইলট হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারও বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) ছুটিতে মধ্য কেরোয়া গ্রামের কাজি বাড়িতে বাড়িতে বেড়াতে আসেন। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল ১১ টার সময় একই এলাকার ৭ জন অসহায় পরিবারকে সেলাই মেশিন দান করেন।

দুপুর ১২টার সময় নিজেদের বাড়ির পুকুরে ছেলে ও মেয়েকে সাঁতার শেখাচ্ছিলেন। এসময় বুকে হঠাৎ ব্যাথা উঠে অসুস্থ হয় পুকুরে ডুবে যান। তখন ছেলে-মেয়ের চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে গিয়ে মফিজকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে নেন। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার মফিজকে মৃ’ত ঘোষনা করেন।

রায়পুর সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর চিকিৎসক ডা. তাহমিনা আক্তার জানান, পানিতে থাকা অবস্থায় তার হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায়। রায়পুর পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেন বলেন, পাইলট মফিজুর রহমান ভালো লোক ছিলেন। তার করুন মৃ”ত্যু’তে পরিবারের সাথে আমরাও শোকাহত।