বাড়িতে বসে অফিসের কাজ করার সময় যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হবে

267

যেসব বিষয় খেয়াল রাখবেন- করোনার কারণে বাড়িতে বসে অফিসিয়াল কাজ করতে হচ্ছে অনেকেরই। বাড়িতে বসে কাজ করলেও অফিসের মতো সঠিক চেয়ারে সঠিকভাবে বসে কাজ করছেন না বেশিরভাগই। বরং কেউ বিছানায় তো কেউ সোফায়- যার যেমন আরাম হয়, ল্যাপটপ কোলে সেভাবেই কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এটি আরামদায়ক মনে হলেও আসলে আপনার শরীরের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাড়ি থেকে কাজের সময় ডেস্কটপ বা ল্যাপটপের সামনে সঠিকভাবে না বসলে নানারকম শারীরিক সমস্যা হতে পারে। তার ফলে আমাদের মাংসপেশিতে খিঁচুনি হতে পারে। মেরুদণ্ডে প্রচণ্ড যন্ত্রণাজনিত অসুখ হতে পারে। ঘাড় ও কাঁধেও হতে পারে যন্ত্রণা। যা আমাদের ভোগাতে পারে দীর্ঘদিন।

চিকিৎসকেরা বলছেন, বাড়ি থেকে অফিসের কাজের সময় আমরা অনেকেই ল্যাপটপ বা ডেস্কটপের সামনে সঠিকভাবে বসি না বলে আমাদের মেরুদণ্ড, মাংসপেশি ও হাড়ের উপর খুব চাপ পড়ে। যার জন্য মেরুদণ্ড, মাংসপেশি ও হাড়ে খুব যন্ত্রণা হয়। আমাদের দুর্বল করে দেয়।

সঠিকভাবে বসে কাজ করতে না পারলে আমাদের শরীরে র’ক্ত সংবহনেও ব্যা’ঘাত ঘটে। তাতে নানা রকমের অসুখ হয় ধমনীর। শুধু তাই নয়, সঠিক ভাবে বসে কাজ না করলে আমাদের শ্বাসকষ্টজনিত নানা অসুখেও আ’ক্রা’ন্ত হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়।

যেভাবে বসা ঠিক নয়
আমরা অনেকেই বিছানায় বসে হাঁটুর উপর ল্যাপটপ রেখে কাজ করতে অভ্যস্ত। এটি ঠিক নয়, বলছেন চিকিৎসকেরা। তাদের বক্তব্য, এর ফলে পিঠের নিচের দিকের অংশ ও পায়ে যন্ত্রণাজনিত অসুখ হতে পারে। এমনকী, হতে পারে স্লিপ ডিস্কের মতো জটিল রোগও।

সারাক্ষণ বিছানায় বসে কাজ করলে পরে আর বিছানায় শুয়ে ঘুম আসতে চাইবে না। কারণ সেক্ষেত্রে বিছানায় বসে কাজ করতেই অভ্যস্ত হয়ে ওঠে আমাদের শরীর। বিছানায় বসে কাজ করার অভ্যাস পরে আমাদের নানা ধরনের স্নায়ুরোগেরও কারণ হয়ে উঠতে পারে। মেরুদণ্ডে বাড়তি চাপ পড়ে বলে তা পরে স্লিপ ডিস্কের মতো জটিল অসুখেরও কারণ হয়ে ওঠে।

হালকা ব্যায়াম করতে পারেন
বাড়ি থেকে ল্যাপটপ বা ডেস্কটপে অফিসের কাজ শুরু করার আগে একটু হালকা ব্যায়াম করে নিতে পারলে খুব ভালো হয়, জানাচ্ছেন চিকিৎসকেরা। অন্তত আধ ঘণ্টার জন্য। কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও এটা করা যেতে পারে। এতে আমাদের শরীরে র’ক্ত সংবহন প্রক্রিয়া স্বাভাবিক থাকে।

চেয়ারে বেশিক্ষণ না বসাই ভালো
তবে বাড়ি থেকে অফিসের কাজ ল্যাপটপ বা ডেস্কটপেও করেন, তাহলে বেশিক্ষণ চেয়ারে বসে সেটা না করাটাই উচিত। চিকিৎসকেরা বলছেন, সেক্ষেত্রে ঘড়িতে আধ ঘণ্টা অন্তর অ্যালার্ম দিয়ে রাখা উচিত। যাতে আধ ঘণ্টা অন্তর চেয়ার থেকে উঠে একটু হাঁটাচলা করে নিতে পারেন। অন্তত মিনিটপাঁচেকের জন্য। বাড়ির চার পাশে এক বা দু’বার পাক মেরেও আসতে পারেন ওই সময়।

কোন চেয়ারে বসবেন?
বাড়িতে বসে অফিসের কাজ করার সময় কোন চেয়ারে বসবেন, সেটা বেছে নেয়াটাও খুব জরুরি। এমন চেয়ারে বসবেন, যার পিছনে হেলান দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।

সোজা হয়ে চেয়ারে বসার জন্য পিঠে একটা বালিশ বা চেয়ারের উপর একটা বালিশ রাখতে পারেন। যত সোজা হয়ে বসে কাজ করবেন, ততই আপনার মেরুদণ্ড সঠিক থাকবে। ল্যাপটপ বা ডেস্কটপও আপনার থেকে অন্তত এক ফুট দূরত্বে থাকলেই সবচেয়ে ভালোহয়।

বসার সময় পা যেভাবে রাখবেন
চেয়ারে বসে কাজ করার সময় মাটিতে রাখা দু’টি পায়ের মধ্যে যাতে বেশ কিছুটা দূরত্ব থাকে তার উপর নজর রাখতে হবে। না হলে পেশিতে টান ধরতে পারে। এর থেকে পিঠ ও পায়েও অসম্ভব যন্ত্রণাজনিত রোগ হতে পারে, জানাচ্ছেন চিকিৎসকেরা।