ভারতে গেলো আরও ৬৩ মেট্রিক টন ইলিশ

81

পূজা উপলক্ষে প্রতিশ্রুত দ্বিতীয় চালানে ৬৩ মেট্রিক টন ২৪০ কেজি ইলিশ ভারতে রফতানি হয়েছে। ভারতে মোট ১ হাজার ৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানি হবে বলে জানা যায়। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ৮টি ট্রাকে এ ইলিশের চালান কাস্টমস ও বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করে।

এর আগে সোমবার প্রথম চালানে দুই ট্রাকে ১২ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে রফতানি হয়। বেনাপোল কাস্টমসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা শামিম হোসেন জানান, প্রতি কেজি ১০ ডলার মূল্যে শুল্কমুক্ত সুবিধায় এ ইলিশ ভারতে রফতানি হচ্ছে।

জানা গেছে, দেশে ইলিশের উৎপাদন কমার কারণ দেখিয়ে ২০১২ সালের পর রফতানি বন্ধ করে দেয় সরকার। তবে প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বন্ধুত্ব ও সুসম্পর্ক বাড়াতে গত বছর দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ৫০০ টন ইলিশ রফতানি করা হয়েছিল।

এর ধারাবাহিকতায় এ বছরও দুর্গাপূজা উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গে ১ হাজার ৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানির অনুমতি দেয় বাংলাদেশ সরকার। বাংলাদেশের ৯ জন রফতানিকারক ইলিশ রফতানির সুযোগ পেয়েছেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের শর্ত অনুযায়ী আগামী মাসের ১০ অক্টোবরের মধ্যে বাকি ইলিশ রফতানি করা হবে।

বন্ধ ঘোষিত রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শীঘ্রই চালু হবে: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেছেন, বন্ধ ঘোষিত ২৫টি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল জিটুজি, পিপিপি এবং লিজিং ব্যবস্থাপনায় শীঘ্রই চালু হবে। চালু হলে এ সকল মিলের অবসানকৃত শ্রমিকরা অগ্রাধিকার পাবেন।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকার ডেমরা এলাকায় করিম জুট মিল প্রাঙ্গণে সরকারি সিদ্ধান্তে বন্ধ ঘোষিত রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলসমূহের অবসরপ্রাপ্ত/অবসানকৃত শ্রমিকদের সকল পাওনা পরিশোধ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, পাট চাষে কৃষকরা যাতে নিরুৎসাহিত না হয় সেজন্য রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোকে টিকিয়ে রাখা প্রয়োজন। পাটজাত পণ্যের বৈচিত্র্যতা আনয়ন এবং কাঁচাপাট বেইল আকারে রপ্তানির বিষয়ে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়কে আরো উদ্যোগী হতে হবে।

সকলের সহযোগিতায় সোনালী আঁশের হারানো গৌরব ফিরে আসবে বলে প্রতিমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন। এ সময় করিম জুট মিলের ৩০ জন শ্রমিকের হাতে সঞ্চয়পত্র তুলে দেয়া হয়।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ লোকমান হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, বীরপ্রতীক এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আব্দুস সালাম বক্তৃতা করেন।