মাঝ রাত থেকে চলছে বৃষ্টি, চলবে আগামীকাল শনিবারও

154

মাঝ রাত থেকে চলছে বৃষ্টি- গত সপ্তাহে টানা শৈত্য প্রবাহে মুখ লুকিয়েছিলো সূর্য। শীতে বি’প’র্য’স্ত হয়ে পড়ে ঢাকাসহ সারাদেশের জনজীবন। পরে চলতি সপ্তাহের গত সোমবার সূর্য মামা ছুটি শেষে ফিরলে আবার স্বাভাবিক রূপ পায় ঢাকা। এবার আরেক দফা ছুটিতে যাচ্ছে সূর্য।

গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্য রাত থেকেই শুরু হয় বৃষ্টি। এতে রাতের তাপমাত্রা কিছুটা হ্রাস পেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। আবহাওয়া অফিস গতকাল আরও বলছে, মোটামুটি সারাদেশেই হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি/ব’জ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

আজ ৩ জানুয়ারি, শুক্রবার সারাদিন আকাশ কাঁদিয়ে বৃষ্টি বিদায় নিতে পারে আগামীকাল শনিবার বিকালে। এই সময়ে রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পাবে। বৃহস্পতিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ১১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তেঁতুলিয়ায় এ বছর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমেছিলো ৪.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

আসছে তীব্র তিন শৈত্যপ্রবাহ

চলতি মাসে দেশের ওপর দিয়ে দুইটি তীব্র ও একটি মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে আবারও তাপমাত্রা কমতে শুরু করবে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী আগামী তিন থেকে পাঁচ জানুয়ারি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি হতে পারে। এরপর তাপমাত্রা আবার কমতে শুরু করবে। ৬ জানুয়ারির পরপর আসছে তীব্র শৈত্য প্রবাহ। সবমিলিয়ে চলতি মাসে মোট তিনটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক সামছুউদ্দিন আহমেদ জানান, ৩ জানুয়ারির পর থেকে দেশের তাপমাত্রা কমতে থাকবে। ৬ জানুয়ারি থেকে ১০ জানুয়ারির মধ্যে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাবে। মাসের মাঝামাঝিতে জেঁকে বসতে পারে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। মাসের শেষদিকে আবারও তীব্র শৈত্রপ্রবাহ বয়ে যাওযার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ সময় দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় কনকনে শীত অনুভূত হতে পারে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে শীতের প্রভাব বেশি থাকবে। গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে দু’র্যো’গ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে শৈত্যপ্রবাহ ও সরকারের প্রস্তুতি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান তিনি।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক বলেন, তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বলতে রাতের তাপমাত্রা ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে থাকবে। ছয় থেকে আট ডিগ্রির মধ্যে হলে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ এবং আট থেকে ১০ ডিগ্রি হলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ ধরা হয়। ১০ জানুয়ারির পর মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ ও মাসের শেষ সপ্তাহে তীব্র শৈত্যপ্রবাহে বয়ে যাবে।

এ সময় রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা বিভাগের কিছু অংশ, সিলেট, সুনামগঞ্জ ও চট্টগ্রামের বাঘাইছড়িতে শীতের তীব্রতা বেশি থাকবে। ঢাকা থেকে দক্ষিণাঞ্চলে দিকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ থাকবে।