রমজান মাসে ইফতারে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পানি পানে ঘটতে পারে যেসব বিপদ

469

পবিত্র রমজান মাস। তার উপরে অসহ্য গরম। গরমে অতিষ্ঠ মানুষ। গরমে ঘরে-বাইরে হাঁসফাঁস অবস্থা। অতিরিক্ত গরমে ঠাণ্ডা পানি খাওয়ার চাহিদা থাকে বেশিরভাগ মানুষের। তাই ইফতারে ঠাণ্ডা পানি, বরফ কুচি দিয়ে শরবত, ফলের জুস রোজাদার পছন্দের।

তবে আপনি জানেন কি? এই ঠাণ্ডা পানি পান করার অভ্যাস ডেকে আনতে পারে ভ’য়াব’হ বিপদ। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক বেশি ঠাণ্ডা পানিতে কী কী ক্ষ’তি হয় সে সম্পর্কে-

অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পানি খেলে তার মা’রা’ত্মক প্রভাব পড়ে দাঁতের ভেগাস নার্ভের উপর। এই ভেগাস স্নায়ু হল আমাদের স্নায়ুতন্ত্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। বেশি ঠাণ্ডা পানি খেলে ভেগাস স্নায়ু উদ্দীপিত হয়ে ওঠে।

যার ফলে হৃদযন্ত্রের গতি অনেকটাই কমে যেতে পারে। শরীর চর্চার পর ঠাণ্ডা পানি একদমই খাবেন না। কারণ ঘণ্টা খানেক শরীর চর্চার পর শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে অনেকটাই বেড়ে যায়।

এই সময় ঠাণ্ডা পানি খেলে শরীরের তাপমাত্রার সঙ্গে বাইরের পরিবেশের তাপমাত্রার সামঞ্জস্য বিঘ্নিত হয়। ফলে হজমের নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে।

খাওয়ার পরে ঠাণ্ডা পানি পানের অভ্যাস অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর। কারণ এর ফলে শ্বাসনালিতে অতিরিক্ত পরিমাণে শ্লেষ্মার আস্তরণ তৈরি হয়, যা থেকে সং’ক্র’মণের ঝুঁ’কি অনেকটাই বেড়ে যায়।

মাত্রাতিরিক্ত ঠাণ্ডা পানি খাওয়ার ফলে র’ক্ত’নালী সঙ্কুচিত হয়ে পড়ে। শুধু তাই নয়, অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পানি খাওয়ার ফলে আমাদের স্বাভাবিক পরিপাক ক্রিয়া বাধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে হজমের মা’রা’ত্মক সমস্যা হতে পারে।